বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক কারো সঙ্গে তুলনা করা যায় না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- হাছান মাহমুদ বলেছেন, বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্কের সঙ্গে অন্য কোনো দেশের সম্পর্কের তুলনা হয় না। এই সম্পর্ক আমাদের রক্তের সম্পর্ক।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় নয়াদিল্লিতে ফরেন করেসপন্ডেন্টস ক্লাব অব সাউথ এশিয়া আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। উভয় দেশের ইতিহাস, সংস্কৃতি, ভাষা, ঐতিহ্য ও শিল্পকলা প্রায় একই রকম। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় উভয় দেশ একে অপরের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে কাজ করেছিল।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্রের চর্চা হয়। আমাদের দেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচন হয়েছে। আমাদের দেশে নির্বাচন একটি উৎসব। গত ৭ জানুয়ারি আমাদের দেশে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্প্রতি ইউরোপের বিভিন্ন দেশে নির্বাচনের পরিসংখ্যান তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, 2021 সালে পর্তুগালের নির্বাচনে 29.7 শতাংশ ভোট পড়েছে। রোমানিয়ার নির্বাচনে ৩১.৮৪ শতাংশ এবং হংকংয়ের নির্বাচনে ৩০ শতাংশ ভোট পড়েছে। এসব দেশে কোনো বিরোধিতা ছিল না।

হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচনের পর বিভিন্ন দেশ আমাদের অভিনন্দন জানিয়েছে। গতকাল পর্যন্ত ৫৭টি দেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নির্বাচিত সরকারকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে। জাতিসংঘসহ ২০টি আন্তর্জাতিক সংস্থা তাদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ভারতের মতো বাংলাদেশেও উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হয়। কিন্তু বিএনপি ও জামায়াত সব সময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে। তারা জনগণকে ভোট দিতে নিরুৎসাহিত করছে। কিন্তু বাংলাদেশের জনগণ সেই অপচেষ্টা রুখে দিয়েছে। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠন করেছে আওয়ামী লীগ।

তিনি বলেন, কয়েক দশকে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে। একে আরও এগিয়ে নিতে দুই দেশ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবে।

হাছান মাহমুদ বলেন, পারস্পরিক সহযোগিতার অংশ হিসেবে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছেন, যা জনগণ উপকৃত হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাদুকরী নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিভিন্ন সূচকে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে।

সাংবাদিকরা সমাজ পরিবর্তনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারছে উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে সারা বিশ্বে গণমাধ্যম বড় চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বিভিন্ন ভুল ও মিথ্যা তথ্যের ব্যাপারে সাংবাদিকদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

চীন বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী হলেও বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক রক্তের বলে মন্তব্য করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সম্পর্কের সঙ্গে অন্য কোনো দেশের সম্পর্কের তুলনা হতে পারে না। তবে দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের অগ্রগতি ধরে রাখতে প্রতিবেশী সব রাষ্ট্রের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিমরন সোধি, এস ভেঙ্কট নারায়ণ, মুস্তাফিজুর রহমান, প্রকাশ নন্দ প্রমুখ।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.