প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে ইসিতে চিঠি

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগে প্রথম ধাপের (রংপুর, বরিশাল ও সিলেট বিভাগ) পরীক্ষা আগামী ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এরইমধ্যে প্রবেশপত্রও ডাউনলোড শুরু করেছেন প্রার্থীরা। কিন্তু পরীক্ষার একদিন আগে হরতাল-অবরোধে নিরাপত্তা শঙ্কায় পরীক্ষা স্থগিত করতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) চিঠি দিয়েছেন প্রার্থীরা।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ-২০২৩ (প্রথম ধাপ) পরীক্ষার্থীদের পক্ষে বুধবার (৬ ডিসেম্বর) মো. আশরাফুল ইসলাম নামে এক প্রার্থী এ চিঠি দেন। ইসির কর্মকর্তারা আবেদনের চিঠিটি গ্রহণ করে তা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে উপস্থাপন করবেন বলে প্রার্থীদের জানান।

7Searchppc

চিঠিতে বলা হয়, আগামী ৮ ডিসেম্বর মোট ৩ লাখ ৬০ হাজার প্রার্থী পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবেন। দেশের সবচেয়ে বড় এ নিয়োগ পরীক্ষায় অর্ধেকের বেশি পরীক্ষার্থী বিভিন্ন কারণে নিজ জেলার বাইরে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অবস্থান করছেন। দেশে হরতাল ও অবরোধের কারণে বুধবার ও বৃহস্পতিবারে মধ্যে আমরা নিজ জেলায় যেতে পারছি না। পাশাপাশি জীবনের ঝুঁকিও রয়েছে। সেই সঙ্গে অনেকের প্রবেশপত্র ডাউনলোডের মেসেজ এখনও আসেনি।

‘নির্বাচন তফসিল ঘোষণার পর সব প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের আয়ত্তাধীন থাকে। দেশের এ পরিস্থিতিতে যদি ৮ ডিসেম্বর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়, তাহলে অর্ধেকের বেশি পরীক্ষার্থী অবরোধের কারণে পরীক্ষা দিতে নিজ জেলাতে উপস্থিত হতে পারবো না। সার্বিক বিষয়টি দ্রুত বিবেচনা করে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা স্থগিত করতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিতে আপনার (সিইসি) মর্জি হয়।’

এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) শাহ রেজওয়ান হায়াত গণমাধ্যমকে বলেন, পরীক্ষা পেছানো বা স্থগিতের সিদ্ধান্ত হয়নি। নির্বাচন কমিশন কিংবা প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকেও আমাদের এ নিয়ে কিছু জানানো হয়নি।

উল্লেখ্য, প্রথম ধাপের পরীক্ষা গত ২৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দুই দফায় পিছিয়ে সবশেষ ৮ ডিসেম্বর নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.