নিউক্যাসলকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি

0

খেলাধুলা ডেস্ক/- ইনজুরি থেকে ফিরে এটি ছিল তার দ্বিতীয় ম্যাচ। কিন্তু কেভিন ডি ব্রুইন সেটা বুঝতে পারেননি। নিউক্যাসল ইউনাইটেডের বিপক্ষে আগের ম্যাচেও যে জাদু দেখিয়েছিলেন সেটাই ধরে রেখেছেন তিনি। সাবস্টিটিউশন করে খেলার চিত্র পাল্টে দেন এই বেলজিয়ান। প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে নিউক্যাসলকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

শনিবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে ঘরের মাঠে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত নিউক্যাসল। কিন্তু অফসাইডের কারণে গোলটি বাতিল হয়ে যায়। তবে এই শট ঠেকাতে গিয়ে চোট পান সিটির গোলরক্ষক এডারসন। ষষ্ঠ মিনিটে তার বদলি হিসেবে মাঠে নামেন জার্মান গোলরক্ষক স্টেফান ওর্তেগা।

7Searchppc

এরপর নিজেদের সংগঠিত করে আক্রমণ শুরু করে সিটি। ম্যাচের ২৬ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন বার্নার্দো সিলভা। অভিজ্ঞ পর্তুগিজ মিডফিল্ডার কাইল ওয়াকারের দুর্দান্ত লো ক্রসে তার হিল দিয়ে দুর্দান্ত ফ্লিক দিয়ে জালের পিছনে খুঁজে পান। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক মার্টিন দুবব্রুকারকে দেখা ছাড়া কিছুই করার ছিল না।

৩৫তম মিনিটে ম্যাচে ফিরে আসে নিউক্যাসল। তারা আলেকজান্ডার ইসাকের দক্ষতার জন্য ধন্যবাদ, যিনি বারবার সিটির প্রতিরক্ষাকে আতঙ্কিত করেছিলেন। পাল্টা আক্রমণে বল পেয়ে তাকে খুঁজে পান গুইমারেস। গতিতে ওয়াকারকে পাশ কাটিয়ে ক্রস শটে জাল খুঁজে নেন ইসাক।

গোল পেয়ে আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠে নিউক্যাসল। 2 মিনিট 19 সেকেন্ড পর পাল্টা আক্রমণে দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় তারা। অ্যান্টনি গর্ডন ড্যান বার্নের বাম ফ্ল্যাঙ্ক থেকে একটি নিরবচ্ছিন্ন শটে দূরের পোস্টটি খুঁজে পান।

বিরতির আগে আক্রমণাত্মক ফুটবল ধরে রেখেও সমতা আনতে পারেনি সিটি। ২-১ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় নিউক্যাসল।

দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণ চালিয়ে যায় সিটি। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি। সেরকমই ৬৯তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি জুলিয়ান আলভারেজ। পরের মিনিটেই তার শট আটকে দেন ডিফেন্ডার ফ্যাবিয়ান স্কার।

ম্যাচের গতি বুঝতে পেরে ডি ব্রুইনকে বাদ দেন সিটি কোচ গার্দিওলা। কোচের আস্থা শোধ করতে দেরি হয়নি বেলজিয়ামের। ৭৪ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরান তিনি। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ঠাণ্ডা মাথায় জাল খুঁজে নেন ডি ব্রুইন।

ম্যাচটিও ছিল নির্ধারিত সময়ে। সিটি তখন পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায়। এমন সময়ে আবারও ফ্ল্যাশ নিয়ে হাজির হন ডি ব্রুইন। যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে দুর্দান্ত ক্রস দিয়ে অস্কার ববকে খুঁজে পান তিনি। বব তার পাশে থাকা খেলোয়াড়ের স্লাইড এড়াতে দুর্দান্ত ড্রিবলিং করে নেট খুঁজে পান।

টানা তৃতীয়বারের মতো প্রিমিয়ার লিগ জিতেছে সিটি। ২০ ম্যাচে ১৩ জয় ও ৪ ড্র করে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে শিরোপাধারীরা। এদিকে 21 ম্যাচে 29 পয়েন্ট নিয়ে 10 নম্বরে রয়েছে নিউক্যাসল। ২০ ম্যাচে ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে লিভারপুল। ড্রয়ে ৪২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে নেমে গেছে অ্যাস্টন ভিলা।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.