যাই করুক ভোটাররা কেন্দ্রে যাবে না: রিজভী

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- নির্বাচন কমিশনারদের সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, যত ভয়-ভীতি প্রদর্শন করা হোক না কেন, ভোটের দিন কেন্দ্রে কোনো ভোটার পাওয়া যাবে না। এই নির্বাচনের বিরুদ্ধে সারা দেশ আজ ঐক্যবদ্ধ।

সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) রাতে এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

7Searchppc

রিজভী বলেন, এখন তারা ভোটারদের হুমকি দেওয়া শুরু করেছে। পুরো বাংলাদেশকে কারাগারে পরিণত করা হয়েছে। কারাগারের ভেতরে যারা নিক্ষিপ্ত তাদের নির্যাতন করে হত্যা করা হচ্ছে। একদিকে নৌকার প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা হুমকি দিচ্ছেন, তারা বলছেন, ভোটকেন্দ্রে না গেলে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা হবে। অন্যদিকে নির্বাচন কমিশনাররা জেল-জরিমানার হুমকি দিচ্ছেন। কেউ ভোটে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে সাত বছরের জেল ও জরিমানা হবে। ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য লিফলেট বিতরণকারীদের গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।

ইসি মোঃ রিজভী বলেন, আনিছুর রহমান প্রতিদিন গণভবন থেকে ফরমান ঘোষণা করছেন, আর একতরফা পটানো নির্বাচনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীরা রাস্তার গুণ্ডাদের মতো আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা শাসন করছে। বিএনপিকে শাস্তির হুমকি দিচ্ছেন আনিসুর রহমান। বাংলাদেশের সংবিধানে ভোট দেওয়া একটি মানবাধিকার, এবং ভোট না দেওয়াও একটি মৌলিক মানবাধিকার। কাউকে জোর করে ভোট দেওয়া যাবে না। যারা ভোটকেন্দ্রে যাবে না তাদের নাশকতার মামলার হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

দেশের বিভিন্ন স্থানে জনগণের মৌলিক অধিকারের দাবিতে লিফলেট বিতরণ করতে গিয়ে পুলিশ শত শত বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার ও নির্যাতন করেছে বলেও অভিযোগ করেন এই বিএনপি নেতা।

নির্বাচন কমিশনারদের উদ্দেশে রিজভী বলেন, এই একদলীয় ভোট জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। সরকার গণতান্ত্রিক বিশ্বের চোখে ধুলো দিতে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে উপস্থিতি দেখাতে বাধ্য করতে অভিনব অমানবিক নির্যাতনের পদ্ধতি ব্যবহার করছে। সংবাদপত্রে প্রতিদিন খবর আসছে যে, আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের অনুগত প্রশাসন গণভবনের নির্দেশে সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কার্ডের সুবিধাভোগী প্রায় দুই কোটি মানুষকে টার্গেট করেছে। সুবিধাভোগী কার্ড সংগ্রহ করা হচ্ছে, ফেরত দেওয়া হবে ভোট সাপেক্ষে। ভোটকেন্দ্রে না গেলে কার্ড বাতিলের হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.