At last news on first everyday everytime

নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে শৃঙ্খলিত করে রাখা হয়েছে : রবি

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- ইচ্ছা থাকলেও মানুষ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারছে না।দীর্ঘ সময় ধরে নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে শৃঙ্খলিত করে রাখা হয়েছে।সরকার ও নির্বাচন কমিশনের কারণে নির্বাচনী ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা-১০ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী শেখ রবিউল আলম রবি।

তিনি বলেন,জনগণের অর্থের অপচয় করে ভোটের আয়োজন করা হলেও সেখানে জনগণের কোনো অংশগ্রহণ নেই। এ পরিস্থিতি আর চলতে দেয়া যায় না। তাই বিএনপি নির্বাচনী ব্যবস্থার সংস্কার চাই।ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করে রবি বলনে, জনগণ সরকাররে অত্যাচারে অতিষ্ঠ। তারা এ থেকে মুক্তি চায়। তারা খালেদা জিয়ার নেতৃত্বাধীন সরকার চায়। তার মুক্তির বিকল্প নেই।

মঙ্গলবার নির্বাচনী প্রচারণার তৃতীয় দিনে বিকেলে হাজারীবাগে জনসংযোগ শেষে পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিগত ১১ বছর ধরে আওয়ামী লীগ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করে রেখেছে। জনগণ ভোট থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। রাষ্ট্রের কাড়িকাড়ি টাকা খরচ করে নির্বাচন আয়োজন করা হচ্ছে, কিন্তু আওয়ামী লীগের ভোট দস্যুতার কারণে জনগণ কেন্দ্রে যেতে ভয় পায়।

রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপি দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থার সংস্কার চায় উল্লেখ করে ধানের শীষের এ প্রার্থী বলেন, সরকার বিতর্কিত কমিশন করে দেশের একটি অসম রাজনৈতিক প্লট তৈরি করেছে। এ অবস্থা থেকে জনগণকে নির্বাচনমুখি করতে চেষ্টা করছে বিএনপি।

ভোটারদের কেন্দ্রে নিতে কোন কৌশল অবলম্বন করবেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে শেখ রবিউল আলম বলেন, ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে যে শঙ্কা ও অনীহা তা একদিনে তৈরি হয়নি। বিএনপি জনগণের জন্য রাজনীতি করে। সে দলের একজন প্রার্থী হিসেবে আমিও চেষ্টা করছি ভোটাররা যাতে কেন্দ্রে আসে।তিনি আরও বলেন, এখন ভোটাররা ধরেই নেন যে তারা পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন না। ফলাফল আগেই নির্ধারিত হয়ে যায়। এ অবস্থায় সরকার, নির্বাচন কমিশন ভোটাররা ঘুরে না দাঁড়ালে পরিবর্তন সম্ভব নয়। আমি ভোটারদের সচেতন করার চেষ্টা করছি। আশা করি সরকার ও নির্বাচন কমিশন জনগণের মনের কথা বুঝবে।মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেন ধানের শীষের প্রার্থী শেখ রবিউল আলম রবি। বিকেলে হাজারীবাগের গাবতলা মসজিদ কলোনি রোডে নির্বাচনী অফিসের উদ্বোধন করেন তিনি। পরে সোনাতনগড়, বৌ বাজার, ট্যানারী মোড়, মনেশ্বর রোড, নতুন রাস্তা, শেরেবাংলা রোড, রায়েরবাজার ও এর আশপাশের এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ চালান তিনি। পরে ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের সঙ্গে মতবিনিময় করেন শেখ রবিউল আলম।

নির্বাচনী প্রচারে পুলিশের বেআইনি হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলে দিনি বলেন, প্রচার-প্রচারণা নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আমাদের সমঝোতা হয়েছে। অথচ সে বিষয়ে পুরোপুরি অবগত না হয়েই পুলিশ আমাদের বাধা দিচ্ছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.