Ultimate magazine theme for WordPress.

‘দেশে সন্ত্রাস-দুর্নীতি বিএনপির সৃষ্টি’

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় সন্ত্রাস-দুর্নীতি করেছে।দেশে সন্ত্রাস-দুর্নীতি বিএনপির সৃষ্টি।কথাগুলো বলেছেন, তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

রোববার (১ ডিসেম্বর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের নতুন ভবনে দলের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং তার দুই পুত্রের দুনীতির তথ্য প্রমাণিত হয়েছে। দুর্নীতির দায়ে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান সাজাপ্রাপ্ত আসামি।

তিনি বলেন, বিএনপির শাসনামলে তাণ্ডব চালিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা শাহ এ এম এস কিবরিয়া, আহসান উল্লাহ মাস্টারসহ সারা দেশে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের হত্যা করা হয়। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে আইভী রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মী হত্যা করা হয়।

বিএনপির শাসনামলে বাংলাদেশ দুর্নীতিতে ৫ বার চ্যাম্পিয়ন হয় জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আওয়ামী লীগ সম্পর্কে যেসব মন্তব্য করছেন সেটি তাদের বেলায় মানায়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপিসহ দেশবিরোধী একটি মহল গুজব ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। মানুষের মধ্যে ভীতি ছড়াচ্ছে। বিএনপির এসব চক্রান্তের পরেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকারের সাফল্য বিশ্ব দরবারে প্রশংসিত হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে হাছান মাহমুদ বলেন, জামালপুরে সিপিবির সমাবেশে হামলার ঘটনা ন্যাক্কারজনক। তিনি এ ঘটনায় নিন্দা জানান। এছাড়া সড়ক পরিবহন আইন দুর্ঘটনা রোধে সহায়ক হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে প্রচার উপ-কমিটি ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, সম্মেলন উপলক্ষে ক্রোড়পত্র বের করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত একটি অ্যালবাম তৈরি করা হবে। এছাড়া একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়েছে। সম্মেলনে উপস্থিত কাউন্সিলর ও ডেলিগেটদের দলের গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রসহ একটি ব্যাগ দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।সভায় ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার, তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান, আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপ-কমিটির সদস্য আখতার হেসেন, শেখ তন্ময় প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেস্টা এইচ টি ইমাম বলেন, সম্প্রতি টকশোতে বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাকে দুর্ঘটনা বলেছেন। পরিকল্পিত এ ধরনের একটি ঘটনাকে কী করে তারা দুর্ঘটনা বলেন?

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.