Ultimate magazine theme for WordPress.

‘জনগণের প্রতি তাদের ন্যূনতম দায়বদ্ধতা নেই’

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- দেশের উত্তরাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এখন বন্যায় সর্বস্বহারা মানুষের হাহাকার। ভারতের উজান থেকে নেমে আসা ঢলে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। নতুন করে আরও পাঁচটি জেলায় পানি প্রবেশ করেছে। শুকনো আশ্রয় ও খাবারের সন্ধানে বানভাসী মানুষ ছুটছে। কোথাও ত্রাণের গাড়ি কিংবা নৌকার সংবাদ শুনলেই ছুটে যাচ্ছেন তারা। উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে চারদিন ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। বন্যার পানিতে ডুবে জামালপুর ৪, শেরপুর ৪ ও গাইবান্ধায় ২ জনসহ ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (২১ জুলাই) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ত্রাণের অভাবে যখন করুণ অবস্থা তখন সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা ঢাকায় বসে গলাবাজি করছেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে ত্রাণ পৌঁছেনি এখনো। দুর্ভাগ্যজনকভাবে সরকারের যে উদ্যোগ প্রয়োজন সেটাও আমরা লক্ষ্য করছি না। সরকারের চরম উদাসীনতা প্রমাণ করে জনগণের প্রতি তাদের ন্যূনতম দায়বদ্ধতা নেই। তারা জনবিদ্বেষী।

বিএনপির এ মুখপাত্র অভিযোগ করে বলেন, সরকারের দায়িত্ব বন্যা কবলিত মানুষকে রক্ষা করা। যেটা সরকার করছে না। আমরা বিএনপির পক্ষ থেকে যতটা সম্ভব বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়াচ্ছি। এ লক্ষ্যে দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আহ্বায়ক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দলের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জিঘাংসার শিকার বেগম খালেদা জিয়া। শেখ হাসিনাই জামিনে বাধা দিচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়ার। তাকে বন্দি রেখে লুণ্ঠন-দুঃশাসনে দেশকে রসাতলে নিয়ে যাচ্ছে জনধিকৃত সরকার। দেশে যখন দুর্নীতির মহামারি চলছে তখন সরকারের রাঘব বোয়ালদের দুর্নীতির ইনডেমনিটি প্রতিষ্ঠান দুর্নীতি দমন কমিশন ও এর চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতি করতে উৎসাহ দিয়ে বলছেন সরল বিশ্বাসে ভুল করলে অপরাধ হবে না

রিজভী আরও বলেন, সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্তাদের সহনীয় মাত্রায় ঘুষ খেতে বলেছিলেন। সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর ওই বক্তব্যে দেশের কোমলমতি শিক্ষার্থীদেরকে তিনি কী নৈতিক বার্তা দিয়েছিলেন -সেই উত্তর এখনও পাওয়া যায়নি। দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দেখানোর দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি নিজেই যদি সরল দুর্নীতির অভিনব বাণী শোনান, তাহলে দুর্নীতির জোয়ারে দেশ তো ভেসে যাবেই।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.