খুব মূল্যবান কিছু ধাতু আছে গ্রহাণুটিতে

0

তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক/- গত এপ্রিলে রুউগু গ্রহাণুতে গবেষণার জন্য একটি রোবট পাঠায় জাপান, যেটি গ্রহাণুতে গর্ত তৈরি করে তার অভ্যন্তর থেকে মাটি ও অন্য উপাদান বের করে আনার কাজটি করেছে। একটি বড় রেফ্রিজারেটরের আকারের নভোযান হায়াবুসা-টু-তে সোলার প্যানেল আছে, যাতে সেটি সব সময় কার্যক্ষম থাকে।জাপানের হায়াবুসা-টু মহাকাশ যান সফলভাবে ১৮৫ মিলিয়ন মাইল দূরে থাকা গ্রহাণু রুউগু-তে অবতরণ করেছে। কোনো গ্রহাণুতে মহাকাশযান পাঠিয়ে সেখান থেকে নমুনা সংগ্রহের এটাই প্রথম ঘটনা। গ্রহাণুটির মাটি থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে মহাকাশ যানটি। এর মাধ্যমে আমাদের সৌরজগত কিভাবে সৃষ্টি হলো, তা জানা যাবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।

মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা এরই মাঝে একটি গ্রহাণু নিয়ে গবেষণার প্রস্তুতি নিলেও জাপান তার আগেই সেই কৃতিত্ব দেখালো। জাপান এরোস্পেস এক্সপ্লোরেশন এজেন্সি’র সদস্য তাকাশি কুবোতা বলেছেন, এটি তাদের জন্য এক বিরাট সাফল্য। শিডিউল করা সব কর্মকান্ডই সফলতার সঙ্গে হয়েছে জানিয়েছেন তিনি। রউগু গ্রহাণুর মাটিতে নামার আগে হায়াবুসা-টু নভোযানটি একটি পিনবল সাইজের বুলেট নিক্ষেপ করে গ্রহাণুটির মাটিতে গর্ত তৈরি করে। এরপর সেখান থেকে মাটির নমুনা সংগ্রহ করে।

২০১৪ সালে ৩০ বিলিয়ন ইয়েন, অর্থাৎ ২৭০ মিলিয়ন ডলার খরচ করে হায়াবুসা-টু মহাকাশযানটি গ্রহাণু রউগু এর উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়। মহাকাশযানটি সেখানকার নমুনা নিয়ে ফিরে আসবে আগামী বছর।জাপানি বিজ্ঞানীরা এই মিশনের মাধ্যমে আমাদের সৌরজগৎ ৪.৬ বিলিয়ন বছর আগে সৃষ্টির সময় কেমন ছিল, তা জানার চেষ্টা করছেন। এরই মাঝে নভোযানটি তার ক্যামেরায় যেসব ছবি তুলে পাঠিয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে গ্রহাণুটিতে খুব মূল্যবান কিছু ধাতু আছে। আর সেসব ধাতু নিয়ে গবেষণা করতে মুখিয়ে আছেন বিজ্ঞানীরা।

—ডেইলি মেইল

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.