Ultimate magazine theme for WordPress.

আজ থেকে শুরু হচ্ছে সীতাকুণ্ডের শিব চতুর্দশী মেলা

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- দেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় মেলা হচ্ছে সীতাকুণ্ডের শিব চতুর্দশী মেলা। প্রতিবছর শিব চতুর্দশী তিথিতে এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। শিবরাত্রি ব্রতসহ শিবলিঙ্গে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করতে দেশ-বিদেশের লাখো সনাতন ধর্মাবলম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের পুণ্যার্থী জড়ো হন এ মেলায়।

আজ শিব চতুর্দশী। উপমহাদেশের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম তীর্থস্থান সীতাকুণ্ড চন্দ্রনাথ ধামে আজ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে শিব চতুর্দশী উৎসব, চলবে আগামী ৬ মার্চ পর্যন্ত। মেলা উপলক্ষে এরই মধ্যে হাজারো মানুষের পদভারে মুখরিত হয়ে উঠেছে পুরো এলাকা।

চট্টগ্রাম শহর থেকে প্রায় ৩৭ কিলোমিটার পশ্চিমে সীতাকুণ্ড উপজেলা সদরের এই মেলার অবস্থান। চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কের সামান্য উত্তর পাশে এটি অবস্থিত। সীতাকুণ্ড বাজার থেকে সর্পিল আঁকাবাঁকা ছোট্ট একটি সড়ক চলে গেছে চন্দ্রনাথ সোজা পাহাড়ের দিকে। এ পাহাড় বাজার থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে। এর সর্বোচ্চ চূড়াটির উচ্চতা প্রায় ৩৬৫ মিটার বা ১২০০ ফুট প্রায়। চূড়ায় ওঠার পথটি বেশ দুর্গম। বাজার ছেড়ে কিছুটা সামনে এগুলেই পথটি ক্রমেই ওপরের দিকে উঠে গেছে।

এ পথে রয়েছে শংকর মঠ, শ্মশান, গিরিশ ধর্মশালা, ননী গোপাল তীর্থ মন্দির, ভৈরব ধর্মশালাসহ আরও অনেক দেবালয়। আরও কিছুটা পথ ওঠার পর দেখা যাবে ভবানী মন্দির। ভবানী মন্দির ছেড়ে আরেকটু পথ এগুলেই শম্ভুনাথ মন্দির, ছোট্ট একটি পাহাড়ি ঝরনা। আর এখান থেকেই চন্দ্রনাথ মন্দিরের দিকে উঠতে হয়।

আনুমানিক তিনশ বছর আগ থেকে সীতাকুণ্ডে এই মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মেলা কমিটি সূত্রে জানা যায়, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম পাহাড় সীতাকুণ্ডের প্রায় ১২শ’ ফুট উপরে চন্দ্রনাথ মন্দিরসহ পুরো সীতাকুণ্ডে প্রায় অর্ধ-শতাধিক মঠ-মন্দির রয়েছে। বিভিন্নস্থান থেকে ছুটে আসা পুণ্যার্থীরা এসব মূর্তি দর্শন ছাড়াও ব্যাসকুণ্ডে তর্পণ, গয়াকুণ্ডে পিণ্ডদানসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদি পালন শেষে মেলায় মিলিত হবেন। এই মেলায় ভারত, নেপাল ও শ্রীলঙ্কাসহ দেশের প্রত্যন্তঞ্চল থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বী লাখ লাখ নর-নারীর সমাগম হয়ে থাকে। মেলার সার্বিক তত্ত্বাবধানে থাকে মেলা কমিটি ও স্রাইন এস্টেট। এ ছাড়া স্থানীয় পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসন আইনশৃঙ্খলার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করে থাকেন।

মেলা কমিটি সূত্রে জানা যায়, তিনদিনব্যাপী এ মেলা উপলক্ষে সীতাকুণ্ড স্রাইন (তীর্থ) কমিটির উদ্যোগে বিশ্ব বৈদিক সম্মেলন, মহাতীর্থ পদক ও ঋষি সমাবেশসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। শিব চতুর্দশী উপলক্ষে সীতাকুণ্ড শংকর মঠ, রামকৃষ্ণ সেবাশ্রম, লোকনাথ ব্রহ্মচারী সেবাশ্রম, জগন্নাথ সেবাশ্রম, শ্মশান কালি বাড়ি, অনুকূল ও রাম ঠাকুরের আশ্রম, জন্মাষ্টমী পরিষদ, গীতা শিক্ষা কমিটি, ভোলানন্দ সেবাশ্রমসহ বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন গীতাযজ্ঞ, নাম সংকীর্তন, ধর্মসভা, ধর্মীয় সাস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

যেভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে আসার অনেক এসি, নন-এসি বাস আছে। ইউনিক, এস আলম, সৌদিয়া, গ্রিনলাইন, দেশ পরিবহন, শ্যামলী, সোহাগসহ বিভিন্ন বাসে করে আপনাকে সীতাকুণ্ড বাজারে নামতে হবে। সেখান থেকে হেঁটে যেতে হবে চন্দ্রনাথ মন্দিরের দিকে। মেলা ও তীর্থস্থান দেখে রাতেই বাসে বা ট্রেনে করে ফিরে যেতে পারবেন।

সতর্কতা

সীতাকুণ্ড চন্দ্রনাথ মন্দির কিন্তু পাহাড়ের ওপরে আঁকাবাঁকা পথ, সরু রাস্তা, কিছু পথ কাঁচা, আবার কিছু পথ পাকা, সিঁড়ি দেখেশুনে চলতে হবে। পুণ্যার্থীদের পাহাড়ে ওঠার জন্য এখন শান বাঁধানো সিঁড়ি তৈরি করা আছে। তবে পাহাড় কেটে বানানো সিঁড়িগুলোর একেকটি ধাপের উচ্চতা এত বেশি যে, একটু উঠলেই হাঁপিয়ে যেতে হয়।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.