Ultimate magazine theme for WordPress.

‘৯ ডিসেম্বরের মধ্যেই চূড়ান্ত করা হবে আসন’

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- ‘মহাজোটের কাছে জাতীয় পার্টি ৫২টি আসন প্রত্যাশা করে। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই সবকিছু ঠিক করা হবে। আর তা ৯ ডিসেম্বরের মধ্যেই চূড়ান্ত করা হবে। আশা করছি, এ নিয়ে কোনোভাবেই মহাজোটে ভুল বোঝাবুঝি হবে না।’

জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর মশিউর রহমান রাঙ্গা সোমবার বিকেলে পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমার প্রথম কাজ হলো জাতীয় পার্টিকে সারা দেশে শক্তিশালী করা। সক্রিয়-নিস্ক্রিয় সবাইকে মাঠে নামানো। একটি শক্তিশালী গণতান্ত্রিক দল হিসেবে দলকে প্রতিষ্ঠিত করা।

জাপার মহাসচিবসহ অনেকের বিরুদ্ধে মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ আছে, এমন প্রশ্নের জবাবে মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ বলেন, দলের মধ্যে কেউ মনোনয়ন বাণিজ্যে জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এজন্য প্রয়োজনে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।

তিনি বলেন, গত নির্বাচনের আগেও দলের মধ্যে একটি ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি হয়েছিল। তাতে আমরা নির্বাচনে প্রত্যাশিত ফল পাইনি। এবারও নির্বাচনের পূর্বে একটি অশুভ শক্তি এমন তৎপরতায় লিপ্ত। তাই দলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র সম্পর্কে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

বিএনপির সমালোচনা করে জাতীয় পার্টির নতুন মহাসচিব বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে বিনাবিচারে সাত বছর জেলখানায় আটকে রেখে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। এ কারণেই জাতীয় পার্টি বিএনপিকে সমর্থন না দিয়ে আওয়ামী লীগকে সরকার গঠনে সহায়তা করেছে। আমরা পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আদর্শ তৃণমূলে আবারো ছড়িয়ে দেব। যাতে প্রতিটি মানুষ ভোট দেয়ার আগে একবার হলেও ভেবে দেখেন। তাদের সামেন তুলে ধরা হবে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নয় বছরের শাসনামল।

তিনি আরো বলেন, সাধারণ মানুষের কাছে আমরা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের উন্নয়ন, সুশাসন এবং মানবিক কর্মসূচি তুলে ধরতে পারলে দেশের মানুষ অবশ্যই জাতীয় পার্টির লাঙলে ভোট দেবে।

তিনি দায়িত্ব পালনে নেতাকর্মীসহ গণমাধ্যমের সহায়তা কামনা করেন।

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. হাফিজ উদ্দিন, সুনীল শুভ রায়, আজম খান, এ টি ইউ তাজ রহমান, অবসরপ্রাপ্ত মেজর মো. খালেদ আখতার, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের উপদেষ্টা রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান, মো. নোমান, সোমনাথ দে, মোর্শেদ মুরাদ ইব্রাহিম, জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, জহিরুল ইসলাম জহির, আলমগীর সিকদার লোটন, যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, জহিরুল আলম রুবেল, দিদারুল কবির দিদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাঈম, মোবারক হোসেন আজাদ, আমির হোসেন ভূঁইয়া, মো. জসীম উদ্দিন ভূঁইয়া, মো. হেলাল উদ্দিন, সুলতান মাহমুদ, মহিলা পার্টির সেক্রেটারি অনন্যা হুসাইন মৌসুমী, মৌলভী ইলিয়াস, আবু সাঈদ স্বপন, কাজী আবুল খায়ের, হাসান মঞ্জু, হাফেজ ক্বারী ইসারুহুল্লাহ আসিফ, কেন্দ্রীয় নেতা ফজলে এলাহী সোহাগ, রেজাউল রাজি স্বপন চৌধুরী, আক্কাস আলী সরকার, আজাহার সরকার, আলমগীর কবির, মামুনুর রহমান, দেলোয়ার হোসেন মিলন, ফারুক শেঠ প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.