Ultimate magazine theme for WordPress.

‘সাকিবের বক্তব্যই সবাইকে মোটিভেট করেছে’

0

ক্রীড়া প্রতিবেদক /- জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল বাংলাদেশ।

শুধু কি হোয়াইটওয়াশ? দুটি টেস্ট ম্যাচই শেষ হয়েছে তিন দিনে। ব্যাটিং কিংবা বোলিং, কোনো বিভাগেই পারফর্ম করতে পারেনি বাংলাদেশ। সফরের শুরুটা হয়েছিল ৪৩ রানে অলআউট দিয়ে। টেস্ট ক্রিকেটে যা বাংলাদেশের সর্বনিম্ন রান। একই টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট ১৪৪ রানে। ইনিংস ও ২১৯ রানের বিশাল ব্যবধানে হার।

দ্বিতীয় টেস্টেও একই চিত্র। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৩৫৪ রানের জবাবে বাংলাদেশ অলআউট ১৪৯ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে শেষ ১৬৮ রানে। হতশ্রী পারফরম্যান্সে পুরো দলের আত্মবিশ্বাস তলানিতে। ব্যাটিং-বোলিংয়ে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে না পেরে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা পেয়েছিল।

সেই দলটি এখন ঘরের মাঠে প্রতিশোধ নিচ্ছে। চার মাসেই পাল্টে গেল চিত্র। চট্টগ্রাম টেস্ট জিতে এরই মধ্যে সিরিজে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। ঢাকা টেস্টের নাটাইও বাংলাদেশের হাতে। সাফল্যের পিছনে রয়েছে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বিশাল অবদান। টেস্ট সিরিজ আগে দলের বৈঠকে পুরো দলের উদ্দেশ্যে দিয়েছিলেন অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য। মাহমুদউল্লাহর মতে সাকিবের ওই বক্তব্যে উজ্জীবিত হয় পুরো দল।

‘যখন টেস্ট সিরিজটা শুরু হয়, তখন সাকিব এই কথাটা বলেছিল, ‘আমার মনে হয় এটা আমাদের মনে রাখা উচিত, ওখানে (ওয়েস্ট ইন্ডিজে) আমরা কিভাবে হেরেছিলাম। ওই হার দুটো মনে রাখলে, এখানে আমরা মোটিভেট হতে পারব।’ এই জিনিসটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আমার মনে হয় সাকিবের এই বক্তব্য সবাইকে মোটিভেট করেছে।’

‘হারটা যদি আপনি সহজেই ভুলে যান তাহলে কি শিখতে পারলেন। সাকিবের এই কথাটা ভালো একটা বার্তা ছিল। আমার ব্যক্তিগত ভাবে মনে হয় এই কথাগুলো দলকে মোটিভেট করেছে।’

দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। ঢাকা টেস্ট জিতলে দ্বিতীয়বারের মতো ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ জিতবে বাংলাদেশ। ২০০৯ সালে ওদের মাটিতে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছিল বাংলাদেশ। এবার দেশের মাটিতে ক্যারিবীয়াদের হোয়াইটওয়াশের পালা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.