Ultimate magazine theme for WordPress.

‘এভাবে চলতে থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়’

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- নির্বাচনী মাঠে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অনিয়ম করার অভিযোগ এনে এই বিষয়ে পদক্ষেপ না নেওয়ায় নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সমালোচনা করেছে বিএনপি। দলটি বলছে, এভাবে চলতে থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান নজরুল ইসলাম খান।

তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ ২০ দলীয় জোট নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর থেকেই সরকারের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। মনোনয়ন জমা দিতে আমাদের নেতা-কর্মীদের পদে পদে বাধা দেওয়া হচ্ছে। ছোট থেকে বড় সবাইকে আসামি করা হচ্ছে। অনেকেই নিখোঁজ হচ্ছে। এগুলো সবই সুষ্ঠু নির্বাচনের অন্তরায়।

‘আওয়ামী লীগ একের পর এক ফাউল করছে, অথচ নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করছে ইসি। নির্বাচন কমিশন সরকারের সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। এভাবে চলতে থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না’, বলেন বিএনপির এই নেতা।

এক প্রশ্নের জবাবে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘কোনো যুদ্ধপরাধীকে আমরা ধানের শীষ প্রতীক দেবে না, এটা আপনাদেরকে আশ্বস্ত করতে পারি। আর তাছাড়া জামায়াতের মধ্যে অনেক মুক্তিযোদ্ধাও আছে।’

বিএনপির তিন হেভিওয়েট নেতা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়ে প্রশ্ন করলে দলটির এই নীতি নির্ধারক বলেন, অন্য নেতাদের পক্ষে কাজ করার জন্য অনেক সিনিয়র নেতা মনোনয়ন জমা দেননি। এটাকে আপনারা নির্বাচনী কৌশল ও বলতে পারেন।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ২০১৪ সালের মতো আরো একটি প্রহসনের নির্বাচন করতে সরকার গ্রেপ্তার বাণিজ্য অব্যাহত রেখেছে। তিন মাস পূর্বে মিথ্যা ও গায়েবী মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারান্তরীণ তেজগাঁও থানা ছাত্রদলের নেতা আব্দুল্লাহ আল তামিম গাজীপুর জেলে গতকাল মৃত্যুবরণ করেছে। কারা কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও সরকারের নির্যাতনেই তার মৃত্যু হয়েছে।’

কয়েকদিন ধরে বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এর শাহজাহানপুরে বাসা পুলিশ সার্বক্ষণিক ঘিরে রেখেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘মির্জা আব্বাসের বাসায় ঢোকা ও বেরুনোর সময় নেতা-কর্মীদেরকে লাগাতার গ্রেপ্তার করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। মঙ্গলবার থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৫০/৬০ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী’।

বিএনপির এই নেতা অভিযোগ করেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদের পক্ষে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে ফিরে আসার সময় দলটির নেতা-কর্মীদের ওপর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী হামলা চালিয়েছে। পরে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.