Ultimate magazine theme for WordPress.

‘ইউক্রেন সীমান্তে সামরিক উপস্থিতি বাড়িয়েছে রাশিয়া’

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক /- রাশিয়ার সঙ্গে চলমান উত্তেজনা নিয়ে দেশটির সঙ্গে পুরোদম যুদ্ধের হুমকি রয়েছে বলে দাবি করেছেন ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো।

মঙ্গলবার পোরোশেঙ্কো এমন দাবি করে জানান, ইউক্রেন সীমান্তে সামরিক উপস্থিতি বাড়িয়েছে রাশিয়া।

ইউক্রেন-রাশিয়া সংকটের ফলে কূটনৈতিক শীতলতাও দেখা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, তিনি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত সম্মেলন বাতিল করতে পারেন।

চলতি সপ্তাহের শেষে আর্জেন্টিনার বুয়েন্স আয়ার্সে জি২০ সম্মেলনের এক ফাঁকে পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের কথা ছিল ট্রাম্পের। মার্কিন প্রেসিডেন্ট দি ওয়াশিংটন পোস্টকে  জানান, এ বৈঠক নির্ভর করছে একটি প্রতিবেদনের ওপর, যা তার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা তৈরি করছেন।

তিনি বলেন, ‘হতে পারে আমি বৈঠকটি করব না। এমনও হতে পারে বৈঠকটি আমার থাকবেই না।’

এদিকে, ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট পোরোশেঙ্কো সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, আজভ সাগরে সংঘর্ষ ইউক্রেন-রাশিয়া সামরিক অচলাবস্থায় ঘি ঢালতে পারে।

জাতীয় টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পোরোশেঙ্কো বলেন, ‘আমি চাই না কেউ মনে করুক এটি মজা কিংবা খেলা। রাশিয়ার সাথে পুরোদম যুদ্ধের হুমকির মুখে ইউক্রেন।’

গোয়েন্দা প্রতিবেদনের ‍উল্লেখ করে পোরোশেঙ্কো বলেন, ইউক্রেন-রাশিয়া সীমান্তে রাশিয়ার সামরিক উপস্থিতি অনেক বেড়েছে। তাদের ট্যাংক সংখ্যা তিন গুণ করা হয়েছে।

গত রোববার রাশিয়া তাদের জলসীমায় প্রবেশ করেছে দাবি করে ইউক্রেনের দুটি ছোট যুদ্ধজাহাজসহ তিনটি জাহাজ আটক করে। এ সময় গুলিতে তিনজন ইউক্রেনীয় নাবিক আহত হন। আটক করা হয় বেশ কয়েকজনকে।

মঙ্গলবার রাশিয়ার অধিভুক্ত ক্রিমিয়ার সিমফারোপল আদালত আটক ১২ ইউক্রেনীয় নাবিককে দুই মাস করে কারাদণ্ড দেন। এ ছাড়া, আহত তিন নাবিককেও দুই মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.