Ultimate magazine theme for WordPress.

দিনে দিনে বেড়েই চলেছে হার্ট ফেইলিওর সংক্রান্ত রোগীর সংখ্যা

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বডুয়া বলেছেন, হার্ট ফেইলিওর সংক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এই অঞ্চলে দিনে দিনে বেড়েই চলেছে।

শনিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ব্লকে শহীদ ডা. মিলন হলে হার্ট ফেইলিওর বিষয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘এনসিডির গ্লোবাল বার্ডেন অব ডিজিস স্টাডি ২০১৬ সমীক্ষা অনুসারে প্রতিবছর ১ লাখ মানুষের মধ্যে ৩৭০ জন লোক মারা যায় নন কমিউনিকেবল ডিজিজে। এরমধ্যে ১৭২ জন মারা যায় শুধু হার্ট- এর রোগের কারণে। যাদের অধিকাংশেরই বয়স ৩০ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে। তাই বর্তমানে হার্টের রোগ একটি গ্লোবাল সমস্যা হিসেবে পরিচিত। আশার কথা হলো, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে কার্ডিওলজি বিভাগে ডিভিশন অব হার্ট ফেইলিওর, রিহ্যাবিলিটেশন এন্ড প্রিভেন্টিভ কার্ডিওলজির মাধ্যমে স্টেম সেল থেরাপি চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান। সভাপতিত্ব করেন কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসান ।

অন্য বক্তারা বলেন, হার্টের বিভিন্ন কারণ যেমন করোনারি আর্টারি ডিজিজ, উচ্চ রক্তচাপ, কনজেনিটাল হার্ট ডিজজসহ ইনফেকশন, কিডনি ও লিভার ফেইলিওর, বিভিন্ন ড্রাগস যেমন কেমোথেরাপি ইত্যাদি কারণে হার্ট ফেইলিওর হয়ে থাকে। সারা বিশ্বে প্রতিবছর ২ কোটি ৩০ লাখেরও বেশি লোক হার্ট ফেইলিওর-এ আক্রান্ত হয়। এই রোগীদের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পরও তাদেরকে পুনরায় ভর্তি হতে হয় বিধায় এসকল রোগীর সেবা ও চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা রোগীর পরিবারের জন্য অত্যন্ত কষ্টসাধ্য। তাই এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

জেলহত্যা দিবস পালিত
যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে জেলহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ব্লকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ম্যূরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। এসময় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান ও আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে বাদ জোহর দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে চার নেতার আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.