২৩ নভেম্বরকে ‘হিংসামুক্ত বিশ্ব সম্প্রতি দিবস’ ঘোষণার দাবি

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- ২৩ নভেম্বরকে ‘হিংসামুক্ত বিশ্ব সম্প্রতি দিবস’ ঘোষণার দাবি জানিয়েছে ‘বাংলাদেশ বন্ধু সমাজ’ নামে একটি সংগঠন।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানায় সংগঠনটি।

সংগঠনের সভাপতি এফ আহমেদ খান রাজীব বলেন, এ দিবস উদযাপনের জন্য জাতিসংঘ, পৃথিবীর উন্নত দেশসহ বাংলাদেশের বর্তমান-সাবেক নীতিনির্ধারকদের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে বিষয়টিকে সাধুবাদ জানিয়ে সরকারের মাধ্যমে প্রস্তাব উপস্থাপন করতে বলা হয়েছে। সরকারের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনার জন্য চেষ্টা চলছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত নতুন সরকারের প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যান্য মন্ত্রী এবং সংসদ সদস্যদের সেনাকুঞ্জে সংবর্ধনা দিতে চায় ‘বাংলাদেশ বন্ধু সমাজ’।

আহমেদ খান রাজীব বলেন, বাংলাদেশের শিল্পপতিদের সহযোগিতায় সেনাকুঞ্জে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে রাষ্ট্রপতিকে। এ ছাড়া, বিশেষ অতিথি থাকবেন প্রধান বিচারপতি এবং দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

প্রধানমন্ত্রীসহ অন্য মন্ত্রীদের সেনাকুঞ্জে নিয়ে সংবর্ধনা দেবেন, কীসের ভিত্তিতে এমন ঘোষণা দিচ্ছেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আহমেদ খান রাজীব বলেন, এর আগে সেনাকুঞ্জে আমরা একটি ইফতার অনুষ্ঠান করেছি। চেষ্টা করলে সবকিছুই হয়। সেই বিশ্বাস থেকেই আমরা এ ঘোষণা দিচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সরকারের নাম ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার’ এর পরিবর্তে ‘গণবন্ধুতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার’ করার আহ্বান জানানো হয়।

এ পরিবর্তনের কারণ হিসেবে এফ আহমেদ খান রাজীব বলেন, মানবজাতি মহান আল্লাহর প্রজা। নামের মাধ্যমে অন্য পক্ষের প্রজা হলে মহান আল্লাহর সঙ্গে শরিক সাব্যস্তকারী হওয়ার ঝুঁকি থাকে। আমরা সমস্ত দেশবাসী পরস্পর বন্ধু হব, তাই দেশের সরকারের নামকরণ হবে গণবন্ধুতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।

তিনি আরো বলেন,  দেশের মানুষের প্রিয় ব্যক্তি যারা, তাদের চলমান প্রক্রিয়ায় আইন প্রয়োগপূর্বক শাস্তি না দিয়ে দেশবাসীর ভোটের মাধ্যমে শাস্তি দিন অথবা মুক্ত করুন। কারণ, দেশের মধ্যে সবকিছুই দেশবাসীর জন্য।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- অ্যাডভোকেট সুলতান আহমেদ খান, মো. হাবিবুর রহমান, লিয়াকত আলী খান প্রমুখ।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.