Ultimate magazine theme for WordPress.

‘সাংবাদিকতার উন্নয়নে একাডেমিক শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম’

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- ‘বাংলাদেশে সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম শিল্পের রূপান্তরের ধারাবাহিকতা রক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে একাডেমিক শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। এতে গণমাধ্যমকর্মীরা যেমন নিজেদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির সুযোগ পাবেন, তেমনই পেশাদারিত্বের দিক থেকেও হবেন আরো শাণিত, উন্নত।’

বৃহস্পতিবার রাজধানীর গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া কমিউনিকেশন বিভাগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. সাখাওয়াত আলী খান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হলো জ্ঞান তৈরি ও উৎপাদনের কারখানা। এখানে শিক্ষকরা শুধু ক্লাস-প্রাক্যটিকালই করাবেন না, সঙ্গে নানামুখী জ্ঞান তৈরিতেও সহায়তা করবেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকের বক্তৃতায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদের (জানিপপ) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, বস্তুনিষ্ঠতাই সাংবাদিকতার মূল শক্তি। আমরা যেখানে, যে পরিবেশেই সাংবাদিকতা করি না কেন, নৈতিক জায়গা ঠিক না হলে মূল উদ্দেশ্য হাসিল হবে না।

প্রাক্তন তথ্য কমিশনার ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি ও সরকার বিভাগের সদ্য সাবেক অধ্যাপক ড. খুরশীদা বেগম বলেন, শুধু পঠন-পাঠন কিংবা পুথিগত বিদ্যা নয়, সৃজনশীল কর্মকাণ্ডেও নিজেদের সম্পৃক্ত করতে হবে। এটাই সাংবাদিকতা বিভাগের অন্যতম উদ্দেশ্য।

সভাপতির বক্তব্যে গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির বলেন, দেশীয় মিডিয়ায় প্রতিভাবান কর্মী উপহার দিতেই এই উদ্যোগ। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াসহ সাংবাদিকতা ও যোগাযোগ জগতের সকল প্রতিষ্ঠান উপকৃত হবে বলে আশা প্রকাশ করি।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ফৈয়াজ খান জানান, সাংবাদিকতা বিভাগ চালুর মাধ্যমে নতুন চারা রোপিত হলো।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ডিন অধ্যাপক ড. গোলাম আহমেদ ফারুকী, গণমাধ্যমের শিক্ষক আনিস পারভেজ, ড. আফজাল হোসেন খান, ড. অলিউর রহমান, এইচ এম বজলুর রহমান, চলচ্চিত্র পরিচালক জাকির হোসেন রাজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.