বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু আড়ংয়ের তিন দিনব্যাপী উৎসব

0
3
Aarong12018
সংবাদ সম্মেলনে আড়ংয়ের চল্লিশ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানের ডিজাইন কনসালটেন্ট চন্দ্রশেখর শাহা, ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজেসের সিনিয়র ডিরেক্টর তামারা হাসান আবেদ এবং আড়ংয়ের চিফ অপারেটিং অফিসার আশরাফুল আলম

লাইফস্টাইল ডেস্ক /- ২৫ অক্টোবর, ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড আড়ং-এর তিন দিনব্যাপী ৪০ বছর পূর্তি উৎসব। সবার জন্য উন্মুক্ত এই উৎসবটির নাম দেয়া হয়েছে ‘আড়ং ফোরটি ইয়ার্স ফেস্টিভ্যাল’, যেখানে তুলে ধরা হবে বাংলাদেশের হস্তশিল্পের ঐতিহ্য এবং কারুশিল্পীদের সাফল্যের গল্প।

আজ মঙ্গলবার, ঢাকার ব্র্যাক সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আড়ং এবং ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজেসের সিনিয়র ডিরেক্টর তামারা হাসান আবেদ বলেন, ‘আড়ং বাংলাদেশের মানুষের একটি সম্মিলিত প্রয়াস। একেবারে গ্রামীণ নারী থেকে শুরু করে ওস্তাদ কারুশিল্পী, ডিজাইনার এমনকি প্রশাসনিক কর্মকর্তা পর্যন্ত, প্রতিটি পর্যায়ে সবারই রয়েছে সমান অবদান। বাংলাদেশ এবং আড়ং বেড়ে উঠেছে একইসঙ্গে। আমাদের এই উৎসব সেই ভালোবাসার, সেই সম্পর্কের উৎসব। গত চার দশক ধরে যেই কারুশিল্পীরা আমাদের সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, এই উৎসব তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর উৎসব।’

২৫-২৭ অক্টোবর তিন দিনব্যাপী এই বর্ণাঢ্য আয়োজনে হস্তশিল্প প্রদর্শনীর পাশাপাশি থাকছে বেশ কয়েকটি কর্মশালা যেখানে দর্শনার্থীরা সরাসরি কারু ও হস্তশিল্পীদের কাজের সঙ্গে পরিচিত হতে পারবেন। এছাড়াও থাকছে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান, ফ্যাশন শো এবং কনসার্ট। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সেরা হস্ত ও কারুশিল্পী এবং উদ্যোক্তাদের স্বীকৃতি দেওয়া হবে। ফ্যাশন শো-তে প্রদর্শিত হবে হারস্টোরি, তাগা এবং তাগা ম্যান ব্র্যান্ডের নতুন পোশাক। আর কনসার্টে সংগীত পরিবেশন করবেন নগর বাউল জেমস, জলের গান, নেমেসিস এবং মিনার। দর্শনার্থীদের জন্য থাকছে বেশ কয়েকটি খাবারের স্টল, বাচ্চাদের জন্য আলাদা জায়গা এবং পার্টনার প্রতিষ্ঠানের স্টলে বিশেষ সুবিধায় কেনাকাটার ব্যবস্থা।

আড়ং প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৮ সালে, গ্রামীণ কারু ও হস্তশিল্পীদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে। গত ৪০ বছর ধরে বাংলাদেশের আবহমান ঐতিহ্যের সাথে আধুনিক ফ্যাশনের মেলবন্ধন ঘটিয়ে নিজেকে দেশের সবচেয়ে বড় ফ্যাশন ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে আড়ং। বর্তমানে আড়ংয়ের সঙ্গে সরাসরি কাজ করছেন ৬৫ হাজারেরও বেশি কারু ও হস্তশিল্পী। তাদের উৎপাদিত পণ্য সরাসরি বিক্রি হচ্ছে দেশজুড়ে আড়ংয়ের ২০টি আউটলেটে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here