LastNews24
Online News Paper In Bangladesh

নেমে শুরুতেই বিপদে স্বাগতিক বাংলাদেশ

0

খেলাধুলা ডেস্ক/-  তিন তিনটি সেঞ্চুরি ছুঁইছুঁই ইনিংসে চড়ে প্রথম ইনিংসে ৪০৯ রানের বড় পুঁজি গড়েছে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাব দিতে নেমে স্বাগতিক বাংলাদেশ শুরুতেই বিপদে পড়ে গেছে। ৪৪ রান করতেই হারিয়ে ফেলেছে ২ উইকেট। ক্যারিবীয়দের চেয়ে এখনো ৩৬৫ রানে পিছিয়ে মুমিনুল হকের দল। হাতে রয়েছে মাত্র ৮টি উইকেট। প্রথম দিনটি শেষ হয়েছিল সমতা অবস্থায়। তবে এই মুহূর্তে স্পষ্টভাবেই চালকের আসনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

৬ উইকেটে ৩২৫ রান করে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুপুর খাবার খেয়ে ফিরে এসে দ্বিতীয় সেশনে আরও ৮৪ রান যোগ করে ৪০৯ রানে অলআউট হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ক্যারিবীয়রা অলআউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই চা বিরতির ডাক দেন দুই আম্পায়ার। চা বিরতির পর ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ শুরুতেই চরম বিপদে পড়ে যায় বাংলাদেশ। স্কোরবোর্ডে ১১ রান উঠতেই হারিয়ে বসে ২ উইকেট। সেখান থেকে দলকে ৪৪ পর্যন্ত নিয়ে গেছেন তামিম ইকবাল ও মুমিনুল হক।

লাঞ্চ থেকে চা বিরতি, মাঝের এই সেশনটিতে ৪ উইকেট হারিয়েছে ক্যারিবীয়রা। এই ৪টি উইকেটই তুলে নিয়েছেন আবু জায়েদ রনি ও তাইজুল ইসলাম। দুজনেই দুটি করে উইকেট নিয়েছেন। ইনিংসে উইকেট প্রাপ্তিতেও দুজনে সমান্তরালে হেঁটেছেন। তারা দুজনো নিয়েছেন মোট ৪টি করে উইকেট।

বাংলাদেশের কপালের ভাজ ক্রমেই চওড়া করে লাঞ্চের পরও অনেকটা সময় জুটি বেঁধে ব্যাট করেন জশুয়া ডি সিলভা ও আলজারি জোসেফ। ৩২৫ থেকে দুজনে দলকে নিয়ে যান ৩৮৪ রানে। মানে দুজনে মিলে সপ্তম উইকেটে গড়েছেন ১১৬ রানের জুটি। বিপদের বড় কাটা হয়ে উঠা এই জুটিটা ভেঙেছেন তাইজুল ইসলাম। জশুয়া ডি সিলভাকে ফিরিয়ে দিয়ে। তবে আউট হওয়ার আগে ক্যারিবীয় উইকেটরক্ষক খেলেছেন ৯২ রানের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। একটু পর আলজারি জোসেফকেও ফিরিয়ে দিয়েছেন আবু জায়েদ। জোসেফ খেলেছেন ৮২ রানের ইনিংস। তাদের দুজনের যুগপত বিদায়ের পর শেষের ব্যাটসম্যানরা আর বেশি দূর যেতে পারেননি। ফলে ৬ উইকেটে ৩৯৪ রান থেকে ৪০৯ রানেই থেমে যায় ক্যারিবীয়দের দৌড়।

জবাব দিতে নেমে বাংলাদেশ প্রথম ওভারেই হারিয়ে বসে উইকেট। শেন গ্যাব্রিয়েলের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে কাইল মেয়ার্সের কাছে ক্যাচ তুলে দেন সাদমান ইসলামের জায়গা নেওয়া সৌম্য সরকার। স্কোরবোর্ডে রান তখন মাত্র ১। সৌম্য মেরেছেন ডাক! এই ধাক্কা আরও গভীর করে দলীয় ১১ রানের মাথায় ফিরে গেছেন নাজমুল হোসেন শান্তও। তিনি মাত্র ৪ রান করে হয়েছেন গ্যাব্রিয়েলের দ্বিতীয় শিকার।

শুরুতেই জোড়া উইকেট ধাক্কার চাপ সামলানোর চাপ নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তামিম ইকবাল ও অধিনায়ক মুমিনুল হক। দুজনে মিলে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত গড়েছেন ৩৩ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি। দলকে নিয়ে গেছেন ২ উইকেটে ৪৪ রানে। তামিম ২৭ ও মুমিনুল ব্যাট করছেন ১৩ রান নিয়ে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy