LastNews24
Online News Paper In Bangladesh

ত্রিপুরা পল্লীর গৃহহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ

0

ষ্টাফ রিপোর্টার/- শনিবার (২১ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী উপকারভোগীদের হাতে তুলে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের হাটহাজারী উপজেলার উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. আহসানুল হক।

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের দুর্গম সোনাই ত্রিপুরা পাড়ায় বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছে উপজেলা প্রশাসন। এরই ধারাবাহিকতায় আজ চার গৃহহীন দরিদ্রের হাতে তুলে দেয়া হলো প্রধানমন্ত্রীর উপহার নতুন ঘরের চাবি।

এসময় ত্রিপুরা পল্লীর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সামগ্রীও বিতরণ করা হয়।

বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী, হাটহাজারী প্রেস ক্লাব সভাপতি কেশব বড়ুয়া, ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রিছ মিয়া তালুকদার, প্যানেল চেয়ারম্যান আলী আকবর, ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ইমরান প্রমুখ।

tripura1উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমীন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার স্বচ্ছতা ও সততার সাথে প্রাপকদের কাছে পৌঁছে দেয়াই আমার কাজ। ত্রিপুরা পাড়ায় বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমানের উন্নয়ন হওয়ায় আমি খুশি। এক সময় অবহেলিত থাকলেও এখন তারা সব কিছুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হচ্ছে। পড়ালেখার মানোন্নয়ন হচ্ছে। নির্বিঘ্নে তারা গাড়িতে করে নিজ ঘরে যেতে পারছে। সরকার তাদের জন্য সব কিছু করছে, যেন কেউ অবহেলিত না থাকে।’

এর আগে গত ৩১ জুলাই সোনাই ত্রিপুরা পাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে উপকারভোগীদের ছয়টি নতুন ঘর হস্তান্তর করা হয়েছিল।

নতুন ঘর পাওয়া চারজন হলেন- প্রেম কুমার ত্রিপুরা, জৈগ্য চন্দ্র ত্রিপুরা, নয়ন বিকাশ ত্রিপুরা ও যতন কুমার ত্রিপুরা।প্রধানমন্ত্রীর উপহার নতুন ঘর পেয়ে প্রেম কুমার ত্রিপুরা বলেন, ‘পাহাড়ঘেঁষা জরাজীর্ণ ঘরে অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে এতদিন জীবন যাপন করছিলাম। সামান্য বৃষ্টি হলেই বাচ্চাদের ঘুম পাড়িয়ে রাতে স্ত্রীকে নিয়ে পাহারায় থাকতাম, কখন পাহাড় ধসে পড়ে এই ভয়ে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর পেয়ে আমরা আনন্দিত। ইউএনও স্যারের কারণে আমরা ঘর পেয়েছি। বাচ্চারা লেখাপড়ার স্কুল পেয়েছে। প্রার্থনার জন্য মন্দিরসহ যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে। আমরা এখন আর অবহেলিত নই। স্যার ও প্রধানমন্ত্রীর জন্য অনেক দোয়া করছি।’

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy