LastNews24
Online News Paper In Bangladesh

টাঙ্গাইলে ৩০ কি.মি. যানজট, অসুস্থ হয়ে পড়ছেন যাত্রীরা

0

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ ও মহাসড়কে ছোটখাটো দুর্ঘটনার কারণে লকডাউন শিথিলের তৃতীয় দিনেও ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে শনিবার (১৭ জুলাই) সকাল থেকে ঘরমুখো যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বেড়েছে। এছাড়াও ঢাকামুখী গরুবাহী ট্রাকের চাপ বাড়ছে। এতে করে দীর্ঘমেয়াদি যানজটের শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ভোর থে‌কে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়‌কে বঙ্গবন্ধু সেতুরপূর্ব হ‌তে মির্জাপুর উপ‌জেলার নাটিয়াপাড়া পর্যন্ত মহাসড়‌কের প্রায় ৩০ কি‌লো‌মিটার অং‌শে জানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

গরুবাহী ও সবজিবাহী ট্রাক নিয়ে বিপাকে পড়েছেন চালকরা। এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত জানান, দে‌শে লকডাউন শিথিল হওয়ায় বৃহস্প‌তিবার থে‌কে ঢাকা-ট‌াঙ্গা‌ইল মহাসড়‌কে প‌রিবহ‌নের চাপ বে‌ড়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন চালক ও যাত্রীরা। 
এতে স্বাভা‌বিক সম‌য়ের চে‌য়ে মহাসড়‌কে দ্বিগুণ প‌রিবহন চলাচল করায় শনিবার দিবাগত রাত থে‌কে মহাসড়‌কে যানবাহন ধীরগ‌তি‌তে চলাচল কর‌ছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির চাপ আরো বেড়ে গেছে ফলে এ যানজ‌টের সৃ‌ষ্টি হ‌য়ে‌ছে।
এর ওপর বেশ কিছু সময় বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল আদায় বন্ধ রাখা হয়েছিলো। এতে ঢাকাগামী লে‌নে প‌রিবহন কম থাক‌লেও উত্তরবঙ্গগামী লেনে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তবে মহাসড়‌কে প‌রিবহন চলাচল স্বাভা‌বিক কর‌তে পু‌লিশ নিরলসভাবে কাজ কর‌ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে যানজট নিরসন হবে বলে জানান তিনি। 
ঈদুল আজহার আর বাকি তিন দিন। ঘরে ফেরাকে কেন্দ্র করে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে দেখা দিয়েছে দীর্ঘ যানজট। পারের অপেক্ষায় দুই হাজারেরও বেশি যানবাহন রয়েছে নদীপাড়ে।
ভোরে সরেজমিনে দেখা গেছে, মানিকগঞ্জ থেকে পাটুরিয়া ঘাটে অন্তত দুই হাজারেরও বেশি যানবাহন পারের অপেক্ষায় রয়েছে। সাধারণ যাত্রীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে।
ঘাট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের ভিড় বেড়েছে। এতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ার ঘাট এলাকায় যানবাহনের ৪ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দীর্ঘ সারি দেখা দিয়েছে। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে তা আরও বাড়ছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন যাত্রীরা।
এদিকে, যানজট নিরসনে কাজ করছে হাইওয়ে পুলিশ। পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা-কাজির হাট নৌরুটে ১৮টি ফেরি চলাচল করছে বলে জানা গেছে।
এছাড়াও ঢাকামুখী গরুবাহী ট্রাকের চাপ বাড়ছে। এতে করে দীর্ঘমেয়াদি যানজটের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ঈদযাত্রায় সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েন নারী ও শিশুরা।
গাড়িচালক ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী গাড়ি মহাসড়কের পৌলি এলাকায় যানজটে পড়ে। ফলে ২০ মিনিটের রাস্তা পার হতে সময় লাগছে প্রায় দুই ঘণ্টা।
এ ব্যাপারে এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত বলেন, ঈদ সামনে রেখে মহাসড়কে যানবাহনের প্রচুর চাপ রয়েছে। আবার কোথাও কোথায় গাড়ি বিকল হওয়ায় তা সরিয়ে নিতে কিছুটা সময় লাগছে। এতে করে অনেক স্থানে জটলার সৃষ্টি হচ্ছে। যানজট নিরসনে হাইওয়ে ও জেলা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। পরিবেশ স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy